ক্র্যাসুলেসীয় অম্ল বিপাক

কিছু কিছু রসাল উদ্ভিদে রাতের বেলা অম্লের মাত্রা বেড়ে যায় আবার দিনের বেলায় অম্লের মাত্রা কমে যায়।এই দিন এবং রাতের অম্লের ঘনত্বের পরিবর্তন প্রথম লক্ষ করা যায় Bryophyllum calycinum (পাথরকুচি) নামে ক্র্যাসুলেসি গোত্রের এক উদ্ভিদে।সেই কারণেই অম্ল মাত্রার এই পরিবর্তনের ঘটনাকে 'ক্র্যাসুলেসীয় অম্ল বিপাক' বা ক্যাম নামকরণ করা হয়।ইহা পাথরকুচি ছাড়াও ক্যালানচি, সিডাম, ক্র্যাসুলা ও ওপানসিয়া (ফণীমনসা) উদ্ভিদে দেখা যায়।ক্যাম উদ্ভিদের পত্ররন্ধ্র রাত্রিবেলায় খোলে এবং দিনের বেলায় বন্ধ থাকে।ফলে রাত্রিবেলাতেই কার্বন-ডাই-অক্সাইডের সংবন্ধন ঘটে।সেজন্য একে 'অন্ধকার কার্বন-ডাই-অক্সাইড সংবন্ধন' বলা হয়।

  • তথ্যসূত্র

তথ্যসূত্র

Other Languages